ডেস্ক রিপোর্ট ::
যশোরে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক যুবক নিহত হয়েছেন। নিহতের নাম জুয়েল (২৯)। পুলিশের দাবি, নিহত জুয়েল আনসার সদস্য হোসেন আলী হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি। তিনি যশোর সদর উপজেলার হাশিমপুর গ্রামের আমজাদ মোল্লার ছেলে।

বৃহস্পতিবার ভোরে যশোর সদর উপজেলার হাশিমপুর গ্রামে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তৌহিদুল ইসলাম জানান, ৩০ নভেম্বর বেলা ১১টার দিকে হাশিমপুর বাজারে প্রকাশ্যে আনসার সদস্য হোসেন আলীকে গুলি করে হত্যা করে একদল সন্ত্রাসী। ওই ঘটনায় গত ১৪ ডিসেম্বর সাতজনকে আটক করা হয়।

তাদের দেয়া তথ্যমতে, হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি হাশিমপুর এলাকার জুয়েল ও মুন্নাকে গ্রেফতারের চেষ্টা করছিল ডিবি পুলিশ। এর ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার রাতে কক্সবাজার থেকে আটক করা হয় জুয়েলকে।

তার দেয়া তথ্যমতে, অপর আসামি মুন্নাকে ধরতে বৃহস্পতিবার ভোর রাত ৪টার দিকে আসামি জুয়েলকে নিয়ে হাশিমপুর এলাকায় অভিযান চালায় ডিবি পুলিশ। এ সময় মুন্না ও তার সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি করে।

এ সময় আসামি জুয়েল গুলিবিদ্ধ হন। তাকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তৌহিদুল ইসলাম আরও জানান, ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ পালিয়ে যাওয়া সন্ত্রাসীদের একটি পিস্তল, একটি ওয়ান শুটারগান, ১২টি গুলি উদ্ধার করেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে