স্টাফ রিপোর্টার ::
সাতক্ষীরা পৌর যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক ইউসুফ সুলতান মিলনের বেপরোয়া চাঁদাবাজিতে অতীষ্ট ইটাগাছা হাটের ব্যবসায়ীরা। তার হাত থেকে রেহাই পাচ্ছে না আওয়ামীলীগ কর্মী, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান এমনকি সরকারি কর্মকর্তার পরিবারের সদস্যরাও।
যুবলীগের পরিচয়ে এলাকার উচ্ছৃঙ্খল যুবকদের নিয়ে হাটের মোড় থেকে শুরু করে শহরের বিভিন্ন ব্যবসায়ী ও দোকানদারদের বিভিন্ন ভয়ভীতি প্রদর্শন করে চাঁদাবাজি করে যাচ্ছে। চাঁদা না দিলে মিলন তার বাহিনীর সমন্বয়ে দোকানপাট ভাংচুর, মারপিট ও খুন জখমের হুমকি ধামকি প্রদর্শন করে। এঘটনায় ভুক্তভোগী ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে হাটাগাছা হাটের মোড় এলাকার টেলিকম ব্যবসায়ী মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সাতক্ষীরা সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।


অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, কামালনগর এলাকার আতিয়ার রহমানের পুত্র পৌর যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক ইউসুফ সুলতান মিলন একজন চিহ্নিত চাঁদাবাজ। দলীয় পরিচয় ব্যবহার করে ব্যবসায়ীদের কাছে চাঁদা দাবি করে। এছাড়া ইচ্ছামত ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে মালামাল নিয়ে টাকা দেয় না। টাকা চাইলে খুন জখম এবং মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে হয়রানির হুমকি ধামকি প্রদর্শন করে। সম্প্রতি ইটাগাছা হাটের মোড়ের শিমুল টেলিকমের মালিক সাবেক কারারক্ষী মৃত. মুনছুর আলী(বীরমুক্তিযোদ্ধা) এর সন্তান মেহেদী হাসান শিমুলের কাছে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে। চাঁদার টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় খুন জখমের হুমকি প্রদর্শন করে এবং গত ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ তারিখ রাতে কামালনগর গ্রামের জিয়াদ আলীর পুত্র সেকেন্দার আলী, সেকেন্দারের পুত্র জাহিদ, কচির পুত্র শাহিনুরসহ অজ্ঞাত ভাড়াটিয়াদের নেতৃত্বে দেশীয় অস্ত্র শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে তাকে খুন জখমের হুমকি ধামকি প্রদর্শণ করে। এঘটনায় শিমুল চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। তিনি এবিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে